একপশলা স্বাধীনতার ছড়া | চিন্তাসূত্র
২ ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৭ আগস্ট, ২০১৮ | রাত ১১:৩৪

একপশলা স্বাধীনতার ছড়া

স্বাধীনতার মানে ॥  কুমার দীপ
স্বাধীনতা মানে সকলের সাথে
স্বাধীনভাবেই চলা
স্বাধীনতা মানে সকলের কথা
স্বাধীনভাবেই বলা।

স্বাধীনতা মানে তোমার আমার
একটি পতাকা থাকা
স্বাধীনতা মানে উপমার গালে
পতাকার ছবি আাঁকা।

স্বাধীনতা মানে যুদ্ধে হারানো
তিরিশ লক্ষ প্রাণ
স্বাধীনতা মানে কোটি কোটি মুখে
‘সোনার বাংলা’ গান।

স্বাধীনতা মানে কামার-কুমার
একসাথী হয়ে চলা
স্বাধীনতা মানে শ্রমিক-মনিব
একসুরে কথা বলা।

স্বাধীনতা মানে জাতি-উপজাতি
ভেদাভেদ না-ই থাকা
স্বাধীনতা মানে বুকের ভেতর
মানচিত্রটা আঁকা।

আমরা বাঙালি আমাদের আছে
সোনালি স্বদেশ ভূমি
আমরা চলব আগামীর পথে
এই ভূমিটাকে চুমি।

আমরা বাঙালি আমাদের আছে
ইতিহাস গর্বের
মুক্তিযুদ্ধ নমুনা যে তার
চূড়ান্ত  পর্বের।

স্বাধীনতা মানে সেই পর্বটা
সম-উন্নত থাকা
স্বাধীনতা মানে বুকের ভেতর
বাংলাদেশটা রাখা।

মুজিব ভাষণ স্বপ্ন ॥  আবু আফজাল মোহা. সালেহ
মুজিব মানেই  মিষ্টিঝরা
সতেজ ভাষণ,
বাংলা থেকে বিশ্বসভায়
নেয় সে আসন!

মুজিব মানেই ছোট্টশিশুর
স্বপ্ন বুনন,
দুলতে থাকা স্বপ্নগুলো
পায় তা গুণন!

মুজিব মানেই শিক্ষা দেওয়া
নৈতিকতার,
অটল মন কুসুম নরম
স্বদেশ যে তার!

যুদ্ধ ॥ আখতারুল ইসলাম
যুদ্ধ বাঁধে যুদ্ধ বাঁধে ঘর বাড়ি সব পুড়ে
মুখোশ পরা দত্যি দানো আছে শহর জুড়ে।
যুদ্ধবিমান উড়ছে যখন ঘর উঠোনের ছাদে,
দিদির পোষা শালিক তখন মালিক ছাড়া কাঁদে।

মায়ের মুখে হাসির রেখা উধাও হলো কই?
সারা গাঁয়ে যুদ্ধ যুদ্ধ চলছে রে হইচই।
প্রজাপতি ভাবছে বসে মেলবে কোথায় ডানা,
গাছের ডগায় হঠাৎ যদি কেউ এসে দেয় হানা।

এসব কথা ভাবছে খোকন ভাবছে পড়ার ফাঁকে,
হলদে পাখি ডাকছে তাকে মেঘনা নদীর বাঁকে।
হঠাৎ একটা গুলি এসে পড়লো পড়ার ঘরে,
কাঁপছে আকাশ বাতাস পানি কাঁপছে থরে থরে।

আগুন বোমা পড়ছে যেন আমার কাজল গাঁয়ে
কালো বুলেট করে আঘাত হিরণ মাঝির নায়ে।
সূর্য ডুবে সন্ধ্যা নামে আসছে আঁধার রাত,
হানাদারের বিশাল থাবা লম্বা কালো হাত।

হাজার হাজার লাশ ভাসছে মেঘনা নদীর জলে,
চাঁদের মুখটা মেঘে ঢাকা দুখের কথা বলে।
জোনাকিদের আলোর পিদিম হঠাৎ গেলো থেমে,
আঁধার ঘরে একলা আমি ভিজে গেলাম ঘেমে।

যুদ্ধ তুমি ধ্বংস করো সকল স্নিগ্ধ আলো,
ভোর এনে দেয় রাঙা আলো,দূর করে সব কালো।
একাত্তরে বাংলাদেশে নিত্য এসব হতো,
নয়টি মাসে দেশের গায়ে অত্যাচারের ক্ষত।

এসব কথা ভাবতে যেন মন হারালো খেই,
নিকষ কালো আঁধার ঠেলে সূর্য উঠে যেই—
যুদ্ধ খেলা নিপাত যাবে, এটাই সবার কথা,
প্রাণে প্রাণে বেজে উঠুক সুখের স্বাধীনতা।

আমার স্বাধীনতা ॥ সাকিব জামাল
মুক্তভুমে মুক্ত পাখি—মুক্ত কলরব,
মুক্তমনে ওড়াউড়ি—মুক্তমনে সব,
এ আমার সোনার বাংলায়—মুক্তির বারতা,
একাত্তরে যুদ্ধে পাওয়া—আমার স্বাধীনতা।

ইচ্ছেখুশি স্বপ্ন দেখা—ইচ্ছে বিচরণ,
ইচ্ছেসুরে ডাকাডাকি—ইচ্ছেমতো পণ,
এ আমার সুখেরই গান—অধিকারের কথা
একাত্তরে যুদ্ধে পাওয়া—আমার স্বাধীনতা।

আপনমনে ঘর বাধা—আপনমনে বাস,
আপনমনে সবার সনে—ন্যায্য ভূমির চাষ,
এ আমার ভালোবাসা—এগিয়ে যাওয়ার প্রথা
একাত্তরে যুদ্ধে পাওয়া—আমার স্বাধীনতা।

বাংলাদেশ ॥ শুভাশিস দাশ
বহু বীরের আত্মত্যাগে
আসলো স্বাধীনতা
বাংলা নামের একটি দেশ
বিশ্বে দিলো বার্তা!

বাহান্নতে সেই যে শুরু
একাত্তরে শেষ
জন্ম নিলো লাল সবুজের
নতুন বাংলাদেশ!

পাক-হানাদার হটলো সেদিন
বীর সেনানীর কাছে—
মোদের অনেক ঋণ হলো তাই
শহীদ ভায়ের কাছে l

স্বাধীনতা তোমার নামে
শপথ নিয়ে বলি
শেখ মুজিবের পথেই যেন
ন্যায়ের পথে চলি!

চিন্তাসূত্রে প্রকাশিত কোনও লেখা পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।


কোন মন্তব্য নাই.

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন