ধারাবাহিক | চিন্তাসূত্র
৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ | বিকাল ৩:৫৯

ধারাবাহিক Subscribe to ধারাবাহিক

ঝিঁঝিলাগা দিনগুলো-৩॥ শিল্পী নাজনীন

[পর্ব-তিন] দেখতে দেখতে দীপনের চোখ ছলছল করে ওঠে। হাতের সরঞ্জাম নামিয়ে রেখে সে গিয়ে জড়িয়ে ধরে মা’র গলা। কান্না কান্না গলায় বলে, ও মা! ভাইয়াকে বলোনা ঘুড়িটা বানিয়ে দিতে! শুধু একটা! বলোনা মা! মা’র মুখে স্মিত হাসি। সে হাসিতে প্রচ্ছন্ন প্রশ্রয় ভাসে, সুখের ছায়া নাচে। মা সস্নেহে দীপনের ঝাঁকড়া, এলোমেলো চুলকে আরেকটু এলোমেলো...

অা হান্ড্রেড ফেসেস অব উইমেন-৩৮॥ শাপলা সপর্যিতা

[পর্ব-৩৮] একদিকে প্রেমে স্পর্শে নতুন অনুভবের সোনালি সোনালি দিন, সঙ্গ লিপ্সায় স্বপ্ন স্বপ্ন রাত; অন্যদিকে ভীষণতর যাপিত জীবন। অস্থির চারপাশ। আমি চাকরি খুঁজছি শুনে সে নিষেধ করে। —আর একটা বছর বাকি। এমএটা করেই চাকরি খোঁজো না কেন? বরাবর সে স্বল্পভাষী। এর বেশি কিছু বলে না। আমিও কথা বলি না। এছাড়া নানাজনকে বলে রেখেছিলাম...

ঝিঁঝিলাগা দিনগুলো-২॥ শিল্পী নাজনীন

[পর্ব-দুই] দিনটা কেটে গেলো শোকে-সন্তাপে। ঘরময় কান্না, ফিসফাস, কোলাহল, ব্যস্ততা, লোকাচার, ছড়িয়ে ছিল সারাদিন। লতিফা বানুর লাশ খাটিয়ায় তুলে যখন বাদলসহ অন্যান্য আত্মীয়-স্বজন পা বাড়ালো তার অন্তিম ঠিকানা অভিমুখে, তার কিছুক্ষণ বাদেই একে একে পাতলা হতে শুরু করলো ভিড়। হালকা হতে শুরু করলো বাড়ি। একইসঙ্গে শোকটাও যেন হঠাৎ...

অ্যা হান্ড্রেড ফেসেস অব উইমেন-৩৭॥ শাপলা সপর্যিতা

[পর্ব-৩৭] পানাম নগরে যখন নামি, তখন হিজল গাছের পাতায় দিনের শেষ ভাগের আলো গলে পড়ছে। তার সোনালি আভা ছড়িয়ে দিচ্ছে আমাদের মুখে। আর সেই সোনারঙের বিভা ছড়িয়ে পড়ছে মেঘনা শীতলক্ষ্যার জল ছুঁয়ে ছুঁয়ে। বিলাতি থান কাপড় আর বাংলার মসলিন কাপড়ের পাতলা ফিনফিনে কোমলতার ধার  ঘেঁষে, ভেঙে ক্ষয়ে যাওয়া ইটের দেওয়াল ঘেঁষে গজিয়ে ওঠা...

কবিতার ডিসেকশান: নির্মাণ-৬ (গ)॥ শাপলা সপর্যিতা

[পর্ব:৬-গ ॥ কর্ণকুন্তী সংবাদ] তারপর থেকে টানা রিহার্সেলে চমৎকার একটা জায়গায় গিয়ে দাঁড়ায় অবশেষে কর্ণকুন্তী সংবাদ কবিতাটির আবৃত্তি। যতদূর মনে পড়ে তখন অবধি জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় আর মৈত্রেয়ী চট্টোপাধ্যায়ের পর, বহুদিন পর বাংলাদেশে আমি আর মাহিদুল ইসলামই পড়লাম এই কবিতাটি। যুক্তাক্ষরবিশিষ্ট অসংখ্য কঠিন শব্দ, হ্রস্ব...

ঝিঁঝিলাগা দিনগুলো-১॥ শিল্পী নাজনীন

[পর্ব-এক] সারারাত কেটেছে নির্ঘুম। একটুও এক করতে পারেনি দুই চোখের পাতা। মাথাটা ভারী। যেন কয়েক মণ ওজন চাপানো। বিছানা ছাড়তে ইচ্ছে করে না। অবসাদ, ক্লান্তি। ঘড়ির দিকে তাকায় দীপন। সময় নেই, একদম সময় নেই। এবার উঠতে হবে। মিটিং শুরু হবে সাড়ে ন’টায়। এখন ন’টা বেজে সাত। প্রচণ্ড বিরক্তি আর হতাশা নিয়ে বিছানা ছাড়ে শেষমেষ।...

নির্বাণ গল্প (নয়) ॥ আজহার ফরহাদ

পাথর ও শক্তির কথা চন্দনবীজের বাকসো থেকে বেরিয়ে এলো একটা পুরনো ভিক্টোরিয়ান পয়সা। লোহাতে যেমন জং ধরে, তেমনি তামার পয়সাতেও ফিরোজা-সাদা একধরনের দাগ ধরে। দেখে মনে হতে পারে কেউ বুঝি রঙ মেখে গেছে। এ রকম বেশকয়েকটি পয়সা নাড়িয়ে দেখতে গিয়ে উসমান বখস উত্তেজিত হয়ে বললো, পেয়ে গেছি সাধু জি! এই বস্তুটাই আপনাকে দেখাতে চাইছিলাম। একটা...

অ্যা হান্ড্রেড ফেসেস অব উইমেন-৩৬॥ শাপলা সপর্যিতা

[পর্ব-৩৬] রিকশার হুড খুলে দিয়ে বিশ্ব চরাচর মুখর করে তুমুল বৃষ্টিতে ভিজি দু’জন। তখন আমাদের কানে-কানে বৃষ্টির গান ছাড়া আর কোনো শব্দ নেই। কাছে কাছে গায়ে গায়ে স্পর্শ করে থাকা ছাড়া আর কোনো অনুভব নেই। ভেজা শরীরে, ভেজা আকাশে যেন ক্রমশ আগুন-আগুন নেশা ধরে যায়। সেই থেকে বৃষ্টির সঙ্গে তুমুল এক সখ্য গড়ে ওঠে আমাদের। বৃষ্টি...

নির্বাণ গল্প-আট ॥ আজহার ফরহাদ

কালপর্ব: পরিবর্তন ও পরম্পরা শের-এ-মাস্তানের দরগায় ঝাড়ু দিতে দিতে তিনি যখন পেছনের দিকে গেলেন, দেখতে পেলেন কয়েকটি ফুল এইমাত্র যেন কেউ জলে ভিজিয়ে এনেছে। ফুলগুলো হাতে তুলে দরগায় প্রবেশ করার পর দেখতে পেলেন, চাদরও সিক্ত হয়ে আছে, মাত্রই যেন কেউ তাতে গোলাপজল ছিটিয়ে গেলো। সাধু অনেকক্ষণ ধরে খুঁজতে লাগলেন আশেপাশে কাউকে...

নির্বাণ গল্প-সাত ॥ আজহার ফরহাদ

ফকির আলতামাস ও ভিক্ষু সাহর নাথের কথা বৈরামআলী থেকে ফকির আলতামাস এসে পৌঁছালেন গায়ুরকালা নামক স্থানে। নিশাপুরের পথ থেকে তিনি কিছুটা উল্টোদিকে চলে গেলেন। বৈরামআলী ও গায়ুরকালা উভয়ই প্রাচীন বৌদ্ধ স্তূপ ও সাধনস্থলের জন্য বিখ্যাত। ইসলামি শাসনব্যবস্থা ও সুফি প্রভাবে আগের সেই অবস্থা আর নেই তখন। কিন্তু তবু কিছু...