অদৃশ্য ও অন্যান্য ॥ দিব্যেন্দু শেখর দাস | চিন্তাসূত্র
১৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৮ মে, ২০১৮ | সকাল ১১:০৮

অদৃশ্য ও অন্যান্য ॥ দিব্যেন্দু শেখর দাস

খবর
কী খবর? কোনো খবর নেই
‘শনিবারের চিঠি’ আসা বন্ধ হয়ে গেছে
ভেতরটা তোলপাড় করছে।
সেই বিকেল থেকে বিছানায় শুয়ে
চারপাশের নিস্তব্ধতাও যেন
থমকে দাঁড়িয়ে চিৎকার করে উত্তর চাইছে।
দলছুট হাতি আকাশ কাঁপিয়ে ডেকে ওঠে
কৃষ্ণপক্ষে নদীতে গভীর রাত নেমে আসে
প্রেম নয় বিশ্বাসঘাতকতার গল্প, বলব কাকে?
জোর করে হাসি—হ্যাঁ, সব খবর ভালো আছে।

অদৃশ্য
একেবারে একলা ঘর আমার স্তব্ধ
বাড়ি আমার স্বপ্ন বুনেছি তোমার জন্য।
একটি পাতার দুটো দিক
হয় ভালো নয় বা মন্দ
বৃষ্টি মধুর কণ্ঠে ডাক দেয় রবীন্দ্র ঠাকুর।
বিকেলের আলো ছুঁয়ে যায় আলতো পায়ে
গভীর রাতে বিছানা শূন্য বিষণ্ণ মনে।
বৃষ্টি আসে আর যায় কথা বলে না
হারমোনিয়ামে সুর ওঠে মনখারাপের
গলা ধরে আসে জোনাকির, সময়ের কাছে পরাজিত
মনে মনে তৈরি হই, ছন্দহীন কবিতায় চলে অদৃশ্য দ্বন্দ্ব।

চিঠি
ভেঙে পড়েছি জীবনের সংকীর্ণতায়
সত্যিই কী আলো আসবে!
সারারাত্রি বসে ভাবছি যখন
দোরগোড়ায় হাতে চিঠি নিয়ে নতুন সূর্য ডাকছে।
ধোঁয়াশা ভরা পথ মিশে যায় বৃষ্টির জলে
রাস্তা হোক যতই দুর্গম চলতে হবে নতুন করে।
এবার থেকে তুমি মুক্ত, হাত তোলো
চিৎকার করে বলো আমি আছি
আমার সত্তায় আমি বেঁচে আছি।
হারিয়ে গেছে যাদের ধ্বনি
পাহাড়ের কোণ থেকে বাতাসের বুক চিরে
ঝর্ণার জলে মেঘের গর্জনে তাদের তন্নতন্ন করে খোঁজো
ভালোবাসার সাম্রাজ্যে তাদের ফিরিয়ে আনো
কালো, বিশ্রী, খারাপ এ দুনিয়ায় এ রকম কোনো শব্দ নেই
ভয়হীনভাবে হেঁটে চলো কাউকে না পেলে একাকী।
মনের তালার মালিক তুমি নিজে, উড়ে চলো
পাখি, প্রজাপতি সবাই অপেক্ষারত অনন্ত জীবনের সমুদ্রে।

কবি
কিসে সুখ পায়
.        দুঃখ পায়
তাও বোঝে না।
কবি শুধু হেরে যায়
অনুভূতিরা জিতে যায়
যতই বলো কেউ বিশ্বাস করে না।
কোনো দ্বিধা নেই—জবাব দিতে রাজি আছি
বুকের আগল খুলে ধরি তোমরা সব লুটে নাও।
আকাশ নেমে এসেছে হাতে এ আর নতুন কী আছে
তাড়াতাড়ি করো—তাড়াতাড়ি
পদ্মপাতায় জল ছলাৎ-ছলাৎ এবার বৃষ্টি নামবে।

প্রজাপতি ফুলে চুমু খায় শ্রাবণের ঘোরে
মেঘপুঞ্জে জমে আছে হাজারও কষ্ট কবি সব সইছে
সময় পেলে কোনো এক শূন্য বিকেলে ঝরবে
নিথর মুখে কাগজ উড়িয়ে পাগলের মতো সে কাঁদবে।

 জমজমাট
ঠিকানাহীন জীবন চলবে আর কতদিন?
ধেয়ে আসে প্রশ্নের বাণ।
বন্ধুত্ব, প্রেম, ভালোবাসা লোকচক্ষুর অন্তরালে
অগ্নিগর্ভে জ্বলছে মন পরের টার্গেট স্থির
.                              জ্বলবে সারা শরীর।
ঠাট্টার জবাব শিশুর রক্তে, নেই হুইল চেয়ার
তাই বৃদ্ধকে হিঁচড়ে হাসপাতালে।

শুনেছি নতুন নতুন এসেছে মলম
কষ্ট করে দেয় একেবারে কম
তবে এ গণধর্ষণের জ্বালায় করবে কী উপশম!
টুইটারে আছেন? তবে মন্ত্রীদের টুইট দেখুন
সংযত হোন, নইলে শাস্তি জুটবে
কলেজ স্ট্রিটে এবার থেকে শুধু বই পড়া হবে
যুক্তি-তক্কো-গপ্পে এখন বাঙালি জমজমাট আকাশ-পাতাল সর্বত্রে।

চিন্তাসূত্রে প্রকাশিত কোনও লেখা পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।


৩ Responses to “অদৃশ্য ও অন্যান্য ॥ দিব্যেন্দু শেখর দাস”

  1. এস,এম,এমির
    এপ্রিল ৭, ২০১৮ at ১:১৫ অপরাহ্ণ #

    পাঠে মুগ্ধ।

  2. aparajita sarkar
    এপ্রিল ৭, ২০১৮ at ৪:৫৩ অপরাহ্ণ #

    khub sundor

  3. সমীরণ চক্রবর্ত্তী
    এপ্রিল ৭, ২০১৮ at ৫:১৯ অপরাহ্ণ #

    বেশ ভাল লাগল

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন