ইউটিউবে মাইনুল শাহিদের ‘ফেরা’ (ভিডিও) | চিন্তাসূত্র
১ শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৬ জুলাই, ২০১৮ | রাত ১০:৩৫

ইউটিউবে মাইনুল শাহিদের ‘ফেরা’ (ভিডিও)

ইউটিউবে মুক্তি পেলো শওকত ওসমানের জনপ্রিয় ছোটগল্প ‘দুই মুসাফির’ অবলম্বনে মাইনুল শাহিদ পরিচালিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ফেরা। এতে বাউল লালনের চরিত্রে জগন্ময় পাল, জোয়ার্দার চরিত্রে হীরা চৌধুরী ও মল্লিক চরিত্রে অভিনয় করেছেন সেলিম শেখ।

চলচ্চিত্রটিতে বলা হয়েছে, একদিনের জন্য পৃথিবীতে ফিরে আসার সুযোগ পান এক বাউল ও এক ভূস্বামী। উভয়েরই মৃত্যুর পর পৃথিবীতে কেটে গেছে কয়েক যুগ। ফিরে এসে জোয়ার্দার নিজের সম্পত্তি খুঁজতে গেলে সম্পত্তির বর্তমান মালিক মল্লিকের হাতে লাঞ্ছিত হন। এসময় বাউল তাদের ঝগড়া মিটিয়ে দিয়ে গান শুনার আহ্বান জানান। বাউলের গান শুনে চারপাশ থেকে লোক সমাগম ঘটতে থাকে। জনতা বাউলের পরিচয় জানতে চাইলে তিনি নিজেকে লালন ফকির পরিচয় দেন। বহু আগে থেকে নাম শুনে আসা মানুষটিকে কাছে পেয়ে জনতা তখন তাকে ছাড়তে চায় না। এভাবে অতীত-বর্তমানের সংঘর্ষে গল্পটি পরিণতি পায়। সূর্য ডুবতে থাকলে দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে জোয়ার্দারকে আর তৃপ্ত ও দৃপ্ত পদক্ষেপে বাউলকে ফিরে যেতে দেখা যায়।

এ সম্পর্কে মাইনুল শাহিদ বলেন, ‘মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরের আড়িয়াল বিল ও পার্শ্ববর্তী সিরাজদিখান উপজেলার বিভিন্ন লোকেশনে চলচ্চিত্রটির শ্যুটিং করা হয়। গল্পটির মূল ঠিক রেখে দৃশ্যায়নের প্রয়োজনে কিছু জায়গায় বদলে নিতে হয়েছে। সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত একদিনে শ্যুটিং শেষ করি। নানা প্রতিকূল পরিস্থিতির কারণে চলতি বছরের মাঝামাঝি এসে সম্পাদনার কাজ শেষ করতে পেরেছি। সম্পাদনা শেষে চলচ্চিত্রটি দশ মিনিট দৈর্ঘ্যে নিয়ে আসি। চলচ্চিত্রটি নির্মাণে আমি আমার সাধ ও সাধ্যের মধ্যে সমন্বয়ের চেষ্টা করেছি। অনেক স্থলেই সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠতে পারিনি।’

চলচ্চিত্রটির পরামর্শক ছিলেন রুহুল রবিন খান, সহকারী পরিচালক জান্নাতে নাঈম, ডিওপি ও সম্পাদনা শাহীন স্বাধীন। এছাড়া সঙ্গীতে সরদার হীরক রাজা, দোতরায় মোহাম্মদ নওফেল, সঙ্গীত পরিচালনায় মাহাবুবুল হক রোমান ও লাঠিয়াল চরিত্রে ছিলেন আসাদ জামান। সিনেমাটির ইংরেজি সাবটাইটেল করে দিয়েছেন ফরহাদ হোসেন মাসুম, লোগো ও পোস্টার করেছেন সোহেল আশরাফ খান।
<>

চিন্তাসূত্রে প্রকাশিত কোনও লেখা পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।


২ Responses to “ইউটিউবে মাইনুল শাহিদের ‘ফেরা’ (ভিডিও)”

  1. মার্চ ১৩, ২০১৮ at ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ #

    চিন্তাসূত্রেই চলচ্চিত্রটি নির্মিত। মানুষের সৃষ্টিশীলতাকে উস্কে দেওয়ার চলচ্চিত্র এটি। অনেক ধন্যবাদ এই চিন্তাসূত্রের সম্পাদককে। সম্পাদকের জয় হোক।

  2. মার্চ ১৩, ২০১৮ at ৪:৩০ অপরাহ্ণ #

    বেশ ভালো

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন