Marbles and others ॥ Thuhin Tauhid | চিন্তাসূত্র
৬ আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | রাত ১০:০৩

Marbles and others ॥ Thuhin Tauhid

Sigh
I live with different types of sigh.
Every day I walk out with them, and come back
They keep company like my shadow
When at night my sleep breaks
A hot sigh burns me. In the morning
A cunning sigh unknowingly reaches into my pocket, noon’s
Fool sigh gets language in the evening’s park

At night when I return to the room, the sigh
Follows me like a detective
.                                    Knocks at the door

Marbles
In my childhood, I would play with marbles, and would spend
the whole day playing and roaming with marble-friends.
At night marbles would become butterflies; I would
move behind them miles leaving fields and corns…

The marbles, which thrown out from my hand, would roll up
into the holes. Playing like that in childhood, I never
thought that once I have to be gone through the
same fate. Then I will be
.                        Rolling up
                                   Rolling up
.                                                And fall into the hole, deep
.                                                                          inside the earth.

Men have no right to play with marbles, rather marbles have right to play with men.

Felanee’s Wing
A pair of broken wings is hanging in the borders barbed wire
Is it a shot bird lonely hanging with flapping wings
Or someone who wrongly entered into the jungle
And suddenly attacked by hungry beast!
.                                    Such a colorful cloth
That hanging on the space’s body like the shinning sun.

History of the division is written by men;
We learn how to divide one earth
The same soil and air, but barbed wires are in the middle
Humanity sprinkled, aggrieved cry—
Felanee’s deep red condensed blood fall in drops tip tip
Felanee’s deep red condensed blood fall in drops tip tip
Felanee’s deep red condensed blood fall in drops tip tip
Cruel bullets crash her greenery early youth.

Nevertheless, when she was hanging on that barbed wire
Her classmate may have been waiting outside the house
The Mother may have sat in the yard to watch her dear like restlessness
Washed a red belt to knot it in her hair, and father
Will never see her again at the time of leaving house.

Felanee has now become a bird
See, how her wings are flying in the air
Felanee is now a bird, flying from space to space
Far away from the barbed wires of hate and division
.                                    Felanee has spread her wings.
Translated by  himself  

দীর্ঘশ্বাস
কয়েক প্রকার দীর্ঘশ্বাসের সাথে বাস করি
প্রতিদিন ঘর থেকে বের হই তাদের নিয়ে—ফিরে আসি
ছায়ার মতো তারা সঙ্গ দেয়—
রাতে আচানক ঘুম ভেঙে গেলে
একটি তপ্ত দীর্ঘশ্বাস আমাকে পোড়ায়। সকালের ধূর্ত দীর্ঘশ্বাস
জামার পকেটে ঢুকে পড়ে অজ্ঞাতেই—দুপুরের বোকা দীর্ঘশ্বাসের মুখে
ভাষা ফুটে সন্ধ্যায়, পার্কে—

রাতে বাসার উদ্দেশে একা ফিরে আসাকালে
গোয়েন্দার মতো পিছু নেয় দীর্ঘশ্বাসগুলো
.                                  নক করে দরজায়

মার্বেল
ছোটবেলায় মার্বেল খেলতাম। মার্বেল বন্ধুদের সাথে খেলা আর
ঘোরাঘুরিতে কেটে যেতো সারাদিন। রাত হলে মার্বেলগুলো প্রজাপতি
হয়ে যেতো—আমি পেছন পেছন ছুটতাম মাঠঘাট পেরিয়ে বহুদূর…

হাত থেকে ছুঁড়ে দেয়া মার্বেল গড়িয়ে গড়িয়ে পড়ে যেতো গর্তে; ছোটবেলায়
এভাবে খেলে কখনো মনেই হয়নি একদিন মার্বেলের পরিণতি
মেনে নিতে হবে। তারপর
                          গড়াতে গড়াতে
.                                            গড়াতে গড়াতে
.                                                       পড়ে যাব একদম গভীর গর্তে—পাতালে।

মার্বেল নিয়ে মানুষের খেলা করার কোন অধিকার নেই, বরং
মার্বেলের আছে মানুষকে নিয়ে খেলার অধিকার।

ফেলানীর ডানা
সীমান্তের কাঁটাতারে ছিন্ন-ছেঁড়া ডানা ঝুলে আছে
একি কোনো গুলিবিদ্ধ পাখি—ডানা ঝাপ্টে ঝুলে আছে একা
নাকি ভুল করে বনে গিয়েছিলো কেউ
অকস্মাৎ ক্ষুধার্ত পশুর থাবা—
.                           এমন রঙিন কাপড়
ভোরের সূর্যের মতো ঝুলে আছে শূন্যের শরীরে

বিখ-িত হওয়ার ইতিহাস মানুষ লিখেছে
আমরা জেনেছি এক পৃথিবীকে কী করে করতে হয় বিভাজিত
একই বাতাস মাটি—মধ্যে মধ্যে বিভেদের কাঁটাতার
রক্তাক্ত মানবতা, আর্তচিৎকার
ফেলানীর তীব্র লাল গাঢ়রক্ত টিপটিপ ঝরে
ফেলানীর তীব্র লাল গাঢ়রক্ত টিপটিপ ঝরে
ফেলানীর তীব্র লাল গাঢ়রক্ত টিপটিপ ঝরে
হিংস্র বুলেটে তর্জা হয় তার সবুজ কৈশোর

অথচ যখন এই কাঁটাতারে সে নিষ্প্রাণ ঝুলে আছে
সহপাঠি বন্ধুটি হয়তো তার বাড়ির সামনে অপেক্ষায়—
তার হরিণের উচ্ছ্বলতা দেখতে মা হয়তো উঠোনে বসে
লাল ফিতাটা ধুয়ে দিয়েছেন তার চুলে বেঁধে দিতে; আর বাবা
ঘর থেকে বের হয়ে ফিরে ফিরে কখনই দেখবেন না তাকে আর

ফেলানী এখন পাখি হয়ে গেছে
এই দ্যাখো, তার ডানা বাতাসে উড়ছে
ফেলানী এখন পাখি—শূন্য থেকে শূন্যে উড়ে যাচ্ছে
বিদ্বেষ আর বিভেদের সীমান্তের কাঁটাতার থেকে বহুদূর
.                                          ফেলানী মেলেছে ডানা

চিন্তাসূত্রে প্রকাশিত কোনও লেখা পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

কোন মন্তব্য নাই.

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন