Bugle And Others ॥ Kazi Nasir Mamun | চিন্তাসূত্র
৬ আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | রাত ১০:০৫

Bugle And Others ॥ Kazi Nasir Mamun

Wing’s Dream Is No More
Standing at the leafy distance
Me, a tree;
There the bullets drop like the birds
Bellow the shot-down shadow.
Nothing remains for me to show
Save the heap of sparse feathers.
That’s how my dreams bridge the gap
Between the bullets and the birds;
As though a leaf had once
Wished to be a bird;
And the Bird, with his death, composed that grief.
So, I tend to decide
Not to make a flight
Since it will seem,
While I be back stirring the sky,
That no more is the wing’s dream. 

Of The Night
Frogs croak
In the quietness of the night.
Monsoon plays drizzling on the tin-roof.
I will swim
like the sloughed-off first lovemaking
When the sky crashes in torrents.
Why are you lying like the sullen sky?
Be a slick ocean.
Playing with body causes water ooze.
O leaf! Why won’t you move tonight?

Bugle
If the relation is made to fall apart
Even the sun won’t give any light to the moon.
So along the roads to the inception of planets
Great artworks of those who made them
Await footmarks.
Leaving in you all the venom
Of a scattered life
I stand up thinking:
I’m leaning on a diligent soul.

Once the return train leaves
Following the whistle of a forlorn night,
In this leisurely whistle-veranda
I stay up the whole night thinking:
For so many years
We haven’t addressed our mother as ‘Ma’
From beneath the shade of her sari-drawn stories.
Translated by Kazi Shahid Shawkat

বিউগল ও অন্যান্য ॥ কাজী নাসির মামুন
ডানার স্বপ্নটা আর নেই
পত্রল ব্যবধানে আমি যে গাছ হয়ে দাঁড়িয়ে আছি
সেখানে পাখির মতো গুলি পড়ে
বুলেটবিদ্ধ ছায়ার নিচে
ছেঁড়া পালকের স্তূপ ছাড়া কিছুই দেখাবার নাই আমার
বুলেট আর পাখিদের সাথে এভাবে আমার
স্বপ্নের সংযোগ
যেন পাতা
পাখি হতে চেয়েছিল
পাখি মৃত্যু দিয়ে লিখেছে সেই শোক।
তাই ভাবছি
উড়ব না
আকাশ মাতিয়ে এলে মনে হবে
ডানার স্বপ্নটা আর নেই।

নৈশকালীন
রাতের নৈঃশব্দ্যে
ব্যাঙ ডাকে
টিনের চালে ঝিরিঝিরি বর্ষার সিগন্যাল
আকাশ ভাঙলে পরে
প্রথম যৌবন-ভাঙা সঙ্গমের মতো
সাঁতরাব,
গুমোট মেঘের মতো শুয়ে আছ কেন?
পেলব সমুদ্র হও।
শরীর মন্থনে জল পড়ে;
পাতা, তুমি কেন নড়বে না আজ?

বিউগল
সম্পর্ক চুকিয়ে দিলে
সূর্যও দেবে না আলো চাঁদের পৃষ্ঠায়।
গ্রহসূচনার পথে পথে কারও কারও চারুকীর্তি
চরণ চিহ্নের আশা করে তাই।
ছত্রভঙ্গ জীবনের সবটুকু হলাহল
তোমার ভেতরে দিয়ে আমিও দাঁড়িয়ে ভাবি:
            কর্মিষ্ঠ হৃদয়ে ঠেস দিয়ে আছি।

     বিমর্ষ রাতের হুইসেলে
একটি ফিরতি ট্রেন চলে গেলে
আলস্য নির্ভর এই ভেঁপুবারান্দায়
রাতভর জেগে থেকে
আমার কেবলি মনে হয়:
আঁচলগল্পের ছায়াতলে কতকাল
আমাদের জননীকে
.              ‘মা’ বলে ডাকি না।

চিন্তাসূত্রে প্রকাশিত কোনও লেখা পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

কোন মন্তব্য নাই.

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন