মিয়ানমারে গণহত্যাবিরোধী পঙ্‌ক্তিমালা | চিন্তাসূত্র
৬ আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং | বিকাল ৫:৩৩

মিয়ানমারে গণহত্যাবিরোধী পঙ্‌ক্তিমালা

কেউ বলে না থাম
কাজী মোহিনী ইসলাম
রক্তখেকো সুচির মুখে
করগে কুকুর হিসু
ডাইনিটা রোজ হত্যা করে
বৃদ্ধ-যুবক-শিশু!

তাকিয়ে দেখে বিশ্ব বিবেক
কেউ বলে না থাম
কোথায় যিশু, মোহাম্মাদ
কোথায় বুদ্ধ, রাম?

অদ্বৈত মারুত
উঠবে কেঁপে
নদীটার সাথেও কথা বলা দরকার।
যে নদীটা শিশুটিকে নিল বুকে
ভাসিয়ে রাখল বাঁধিয়ে জলের হুকে;
বাঁচতে দিল না মায়ানমার—সূ চি সরকার!

সূ চি দির রুচি মানবেরই রক্ত পান
বিশ্ববিবেকের নাই নজরে আরাকান!
হে মার্কিন, হে পরাচীন, হে ভারতবাসী
মানবতা মানে শুধুই হাসাহাসি!

ইসলামি স্টেট; ওআইসির কই নেতারা কই?
স্বার্থ নিজের করতে হাসিল খাচ্ছ বসে দই!
এসে দেখো দুধের শিশুর মৃত্যু; পরাণ্মুখ
উঠবে কেঁপে যে পাষ—কাঁদবে তারও বুক।

সুচি মানে অশান্তি
আশরাফুজ্জামান বাবু
নোবেলজয়ী সুচি
বুঝেছি তোর রুচি!

রক্ত দিয়ে গোসল করিস
রক্ত করিস পান,
রক্তের ওপর দাঁড়িয়ে ধরিস
মানবতার গান!

যে পরিমাণ রক্ত নিলি
রোহিঙ্গাদের কাছে,
সেই পরিমাণ রক্ত কি তোর
ওই শরীরে আছে?

তুই সুচি সেই হিটলারেরই
নব্য সংস্করণ,
তুই সুচি ঠিক অশান্তিরই
সঠিক উদাহরণ।

নোবেলজয়ী সুচির দেশে
সাকিব জামাল
ভুলে গিয়ে অহিংসা
কেন বৌদ্ধ মৌলবাদ?
চরিতার্থে কোন জিঘাংসা
রোহিঙ্গা নিধন ফাঁদ?

কেন এসব নিষ্ঠুরতা
নোবেলজয়ী সুচির দেশে?
কেন লুটপাট-হত্যা-ধর্ষণ
সেনারা দস‌্যু বেশে?

এমন আর চলবে কত
প্রতিবাদে ছাড়ো হাঁক,
মানুষ নামের এ হায়েনারা
চিরতরে নিপাত যাক।

চিন্তাসূত্রে প্রকাশিত কোনও লেখা পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।

কোন মন্তব্য নাই.

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য লিখুন